বিশ্বের গনতান্ত্রিক দেশ গুলোর মধ্যে অন্যতম একটি দেশ বাংলাদেশ। গনতান্ত্রিক দেশ গুলোতে জনগনের মতামতের বিশেষ প্রাধান্য রয়েছে। শুধু তাই নয় জনগনের ভোটের মধ্যে দিয়ে দেশের সরকার গঠিত হয়ে থাকে। তবে বাংলাদেশে গনতান্ত্রিক দেশ হলেও প্রায় সময় গনতান্ত্র হুমকির সম্মুখীন হয়েছে। এই বিষয়ে এবং বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা নিয়ে বেশ কিছু কথা জানালেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহল কবির রিজভী।
বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে তিলে তিলে মে/রে ফেলার ষড়যন্ত্র হয়েছে, হচ্ছে। জেলখানায় সঠিক চিকিৎসা দেওয়া হয়নি। ভালো চিকিৎসা দেওয়ার জন্য বাহিরে যাওয়ারও অনুমতি দিচ্ছে না। খালেদা জিয়ার ১৪তম কারা/মু/ক্তি দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে এসব কথা বলেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহল কবির রিজভী। মঙ্গবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১টায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির নসরুল হামিদ মিলনায়তনে পাওয়ার অব ইয়ুথ এই আয়োজন করে। সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে রুহল কবির রিজভী বলেন, একবার এরশাদের হাত থেকে আরেকবার ফখরুদ্দীন-মঈনুদ্দিনের কাছ থেকে অবরুদ্ধ গণতন্ত্রকে মুক্ত করেছেন আমাদের নেত্রী। কখনো আপস করেননি।

খালেদা জিয়াকে কারাগারে চিকিৎসা দেওয়া হয়নি মন্তব্য করে বলেন, আমরা বারবার তার উন্নত চিকিৎসা দেওয়ার কথা বলেছি। বারবার বলার পরও তা দেওয়া হয়নি। তাকে তিলে তিলে মে/রে ফেলার যড়যন্ত্র হয়েছে। সাজানো মামলায় তাকে আটকে রাখা হয়েছে। রাষ্ট্রযন্ত্রকে কাজে লাগিয়ে তারা আ/ট/কে রেখেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্দ্যেশে রিজভী বলেন, আপনার নেতৃত্বে দেশ ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে। গু/ম-খু/নে/র জন্য উদ্বেগ প্রকাশ করেছে আন্তর্জাতিক মহল। আপনি শুধু ফ্লাইওভার আর উন্নয়ন দেখিয়ে যাচ্ছেন।

দীর্ঘ দিন ধরে শারীরিক ভাবে নানা ধরনের জটিলতায় ভুগছেন বাংলাদেশের জাতীয়তাবাদী রাজনৈতিক দল বিএনপির চেয়ারপারসন এবং বাংলাদেশের সাবেক সরকার প্রধান বেগম খালেদা জিয়া। বর্তমানে তিনি জিয়া অরফানেজ ট্রাষ্ট দূর্নীতি মামলায় সাজা ভোগ করছে। অবশ্যে এখন তিনি জামিনে রয়েছেন। তবে বিদেশে চিকিৎসা সেবা নেওয়ার অনুমতি পাননি আদালত থেকে। তার পরিবার এবং দল আপ্রান ভাবে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বিদেশে চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করনের লক্ষ্যে।

Sites