বর্তমান সময়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের ব্যপক ব্যব হার বৃদ্ধি পেয়েছে গোটা বিশ্ব জুড়ে। বাংলাদেশও রয়েছে এই তালিকায়। তারকা ব্যক্তিরাও এই মাধ্যমে বেশ সরব। সম্প্রতি সমাজিক যোগাযোগের অন্যতম একটি মাধ্যম ইউটিউবে চ্যানেল খুলেছেন বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেত্রী শাবনূর। এই বিষয়ে তিনি নিজেই জানালেন বেশ কিছু কথা।
নব্বই দশকের তুমুল জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা শাবনূর দীর্ঘদিন ধরেই বসবাস করছেন অস্ট্রেলিয়ায়। মাঝে মাঝে দেশে আসলেও খুব বেশি দিন থাকেন না। সেখানেই ছেলে আইজান ও বোনের সঙ্গে বসবাস করছেন তিনি। শাবনূরকে সর্বশেষ দেখা গিয়েছিল এম এম সরকারের অসমাপ্ত ছবি ’পাগল মানুষ’-এ। এম এম সরকারের মৃ/ত্যু/র পর ছবিটির কাজ শেষ করেছিলেন বদিউল আলম খোকন। ছবিটি ২০১৫ সালে মুক্তি পায়। নিয়মিত কাজ না করলেও শাবনূরের জনপ্রিয়তা এতটুকু কমেনি। ভক্তরা এখনো এই সুপারস্টার নায়িকার জন্য মুখিয়ে থাকেন। শাবনূরও ভক্তদের সেই ভালোবাসা বহুদূরে বসেও টের পান। আর তাই ভক্তদের ভালোবাসা পেতে ইউটিউবে হাজির হলেন শাবনূর।

শাবনূর বলেন, ’অনেক দিন ধরেই ভাবছিলাম একটা ইউটিউব চ্যানেল করব। শেষ পর্যন্ত করা হলো। এর আগে অফিশিয়াল ফেইসবুক পেইজও করেছি। ইনস্টাগ্রামেও আছি। আসলে এখন তো সবাই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সরব। এত দিনে এসব মাধ্যমে না থাকার কারণে অনেকেই প্রশ্ন করেছেন আমি কেন নেই। অনেকেই আমার আপডেট জানতে চাইতো। তো এসব কারণেই সবার কাছাকাছি থাকতে আমিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হাজির হলাম।’ এদিকে ১৪ সেপ্টেম্বর প্রকাশিত নিজের ইউটিউব চ্যানেলের সূচনা ভিডিওতে শাবনূর বলেন, ’বন্ধুরা তোমাদের সাথে থাকতে চাই, তোমাদের পাশে থাকতে চাই এবং তোমাদের ভালোবাসা পেতে চাই।’ সেই সঙ্গে তিনি তার ছোট্ট একটি টিমের সঙ্গেও পরিচয় করিয়ে দিয়েছেন ভক্তদের। সেই টিমে রয়েছে তিনজন খুদে। তাদের একজন শাবনূরের ছেলে আইজানও রয়েছেন।

সামজিক যোগাযোগের মাধ্যমে খুবই সহজেই তারকারা তাদের ভক্ত-অনুরাগীদের মাঝে পৌছাতে সক্ষম হয়। বর্তমান সময়ে এই মাধ্যম গুলোতেও নানা ধরনের নাটক সিনেমা প্রকাশিত হচ্ছে। অবশ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম গুলো বিনোদনের একটি অন্যতম মাধ্যম হয়ে উঠেছে।

Sites