সমগ্র বিশ্ব জুড়ে বিভিন্ন দেশ রয়েছে। এক দেশ থেকে অন্য দেশে যাওয়ার জন্য বিশেষ কিছু নিয়ম কানুন রয়েছে। এই নিয়ম কানুন ছাড়া এক দেশ থেকে অন্য দেশে যাওয়া সম্ভব নয়। এই নিয়ম-কানুন এর মধ্য রয়েছে প্রথমত পাসপোর্ট এবং ভিসা। পাসপোর্ট হল একটি ব্যাক্তির পরিচয়পত্র। পরিচয়পত্র ব্যাতীত কোন দেশে যাওয়া সম্ভব নয়। ভ্রমন পিপাসু ব্যাক্তিরা বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ভ্রমন করে থাকে। তবে অনেক দেশের পাসপোর্ট শক্তিশালী সেক্ষেত্রে তাদের ভিসার প্রয়োজন হয় না।
নতুন বছরে বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী পাসপোর্টের তালিকা প্রকাশ করেছে যুক্তরাজ্য ভিত্তিক নাগরিকত্ব ও পরিকল্পনাবিষয়ক প্রতিষ্ঠান হ্যানলি অ্যান্ড পার্টনার্স। বিশ্বের কোন দেশের পাসপোর্ট বেশি শক্তিশালী তা নিয়ে প্রতিবছরই তালিকা প্রকাশ করে থাকে প্রতিষ্ঠানটি। এ বছর এই তালিকার শীর্ষে স্থান করে নিয়েছে এশিয়ার দেশ জাপান। এছাড়া তালিকায় উন্নতি করেছে বাংলাদেশও। একটি দেশের পাসপোর্ট দেখিয়ে কতটি দেশে ভিসা ছাড়া বা অন অ্যারাইভাল ভিসা নিয়ে ভ্রমণ করা যায় তার উপর ভিত্তি করে হ্যানলি পাসপোর্ট সূচকটি তৈরি করা হয়েছে। এই সূচকে মোট ১০৭টি দেশের পাসপোর্ট রয়েছে।

তালিকায় ধারাবাহিকভাবেই আধিপত্য ধরে রেখেছে এশিয়ার দেশগুলো। তালিকার শীর্ষে জাপানের পাসপোর্টধারীরা ১৯১টি দেশে ভিসাছাড়া ভ্রমণ করতে পারেন। গত বছর এই সংখ্যাটি ছিল ১৯০। জাপানের পরেই দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে সিঙ্গাপুরের পাসপোর্ট। ১৯০টি দেশে তাদের অন অ্যারাইভাল ভিসার সুযোগ রয়েছে। তৃতীয়তে থাকা দক্ষিণ কোরিয়ার রয়েছে ১৮৯টি দেশে। শক্তিশালী পাসপোর্টের তালিকায় পরবর্তী তেরটি দেশ ইউরোপের। ১৮৯টি দেশে অন অ্যারাইভাল ভিসার সুবিধা নিয়ে জার্মানির পাসপোর্ট দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে যৌথভাবে তৃতীয় অবস্থানে আছে। চতুর্থে আছে ইটালি ও ফিনল্যান্ড। পঞ্চম শক্তিশালী পাসপোর্ট তিনটি দেশের স্পেন, লুক্সেমবুর্গ ও ডেনমার্ক। ষষ্ঠ অবস্থানে সুইডেন ও ফ্রান্স। এরপরের অবস্থানে আছে সুইজারল্যান্ড, নেদারল্যান্ডসসহ ৫টি দেশ।

তালিকায় যুক্তরাষ্ট্র রয়েছে অষ্টম অবস্থানে। দেশটির পাসপোর্টে ভিসা ছাড়া যাওয়া যায় ১৮৪টি দেশে। যুক্তরাজ্যও আছে একই অবস্থানে।
দক্ষিণ এশিয়ায় শীর্ষে রয়েছে মালদ্বীপ। র‍্যাংকিংয়ে যাদের অবস্থান ৬১। দেশটির পাসপোর্ট ৮৫ টি দেশে ভিসাবিহীন প্রবেশের সুযোগ দেয়। এই অঞ্চলে তাদের পরে ৮৪তম অবস্থানে রয়েছে ভারতের পাসপোর্ট। তাদের রয়েছে ৫৮ টি দেশে ভিসাবিহীন ভ্রমণের সুযোগ। শ্রীলঙ্কার পাসপোর্ট ৯৭তম, নেপাল ১০১ তম আর পাকিস্তান রয়েছে ১০৪ তম অবস্থানে। শক্তিশালী পাসপোর্টের তালিকায় বাংলাদেশ রয়েছে ৯৮ তম অবস্থানে। ২০০৬ সালেও র‍্যাংকিংয়ে বাংলাদেশের পাসপোর্ট ছিল ৬৮ তে। এরপর থেকে ক্রমাগত অবনতি ঘটেছে। ২০১৮ সালে নেমে আসে ১০০তম অবস্থানে। তবে টানা তিন বছর এক ধাপ করে এগিয়ে এবার ৯৮তম অবস্থানে উঠে এসেছে।

র‍্যাংকিংয়ে উন্নতি হলেও বাংলাদেশকে ’ভিসা ফ্রি’ সুবিধা দেয়া দেশের সংখ্যা একই রয়েছে। এশিয়ায় এই সুবিধা দেয় ভূটান, ইন্দোনেশিয়া, মালদ্বীপ, নেপাল, শ্রীলঙ্কা। এছাড়াও আফ্রিকার ১৬টি, ওশেনিয়া অঞ্চলের ৭টি ও ক্যারিবীয় অঞ্চলের ১১ টি দেশে বাংলাদেশের পাসপোর্টে ’ভিসা ফ্রি’ সুবিধা মেলে।

প্রসঙ্গত, প্রতি বছর বিশ্বের শক্তিশালী দেশের পাসপোর্টের তালিকা প্রকাশ করা হয়ে থাকে। এই তালিকা প্রকাশ করে থাকে যুক্তরাজ্যর একটি প্রতিষ্ঠান। ইউরোপ মহাদেশ গুলো বিশ্বের মধ্য বেশ উন্নত। তাদের জীবন যাত্রার মানও উন্নত। তবে শক্তিশালী পাসপোর্টের তালিকায় এশিয়ার মহাদেশ গুলোও এগিয়ে রয়েছে। এই শক্তিশালী পাসপোর্ট ধারী দেশের বিভিন্ন দেশ ভ্রমনের জন্য ভিসার প্রয়োজন হয় না।