১৪ ফেব্রুয়ারি ভালোবাসা দিবসে কেবিন ক্রু তামিমা তাম্মীর সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন বাংলাদেশের ক্রিকেট দলের অন্যতম খেলোয়ার নাসির হোসেন। তাদের এই বিবাহকে ঘিরে সমগ্র দেশ জুড়ে চলছে নানা আলোচনা-সমালোচনা। এবং তামিমা তাম্মীর বিরুদ্ধে উঠেছে নানা অভিযোগ। তিনি তার পূর্বের স্বামীকে ডি/ভো/র্স না দিয়েই নাসির হোসেনকে বিবাহ করেছেন। এবার এমন কর্মকান্ডে বাংলাদেশের প্রচলিত আইনে কী শা/স্তি/র বিধান রয়েছে এই বিষয়ে বিস্তারিত উঠে এলো প্রকাশ্যে।
ক্রিকেটার নাসির এবং তার সদ্য বিবাহিত স্ত্রী কেবিন ক্রু তামিমা তাম্মীর সাম্প্রতিক কা/ণ্ডে বিব্রত অনেকেই। সামাজিক এবং ধর্মীয়ভাবে একজন পুরুষ তার স্ত্রীর অনুমতিতে এক সঙ্গে একাধিক বিয়ে করার বৈধতা রয়েছে এবং ধর্মীয়ভাবে এ বিষয়ে স্পষ্ট নির্দেশনা রয়েছে। এদিকে আইন বলছে, একজন স্ত্রী তার স্বামীকে ডিভোর্স না দিয়ে এবং ইদ্দত সমাপ্ত না করেই কোনোভাবে অন্য পুরুষকে বিয়ে করতে পারেন না। অন্যদিকে জেনেশুনে, অন্যের স্ত্রীকে বিয়ে করলে তা হবে ব্যভিচার হিসেবে শাস্তিযোগ্য অ/প/রা/ধ। সৌদিয়া এয়ারলাইন্সের কেবিন ক্রু তামিমা তাম্মী সম্প্রতি ক্রিকেটার নাসিরেকে বিয়ে করেন। এই বিয়ের ভিডিও ও স্থির চিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে তা জানতে পারেন তামিমার স্বামী রাকিব হাসান। রাকিব হাসান অভিযোগ করছেন, তার স্ত্রী তামিমা ডিভোর্স সম্পন্ন না করেই ক্রিকেটার নাসিরকে বিয়ে করেন। যে ঘটনায় তাদের একমাত্র ৮ বছর বয়সী কন্যা তোবা হাসানও বিব্রত। এই ঘটনায় ক্রিকেটার নাসির ও স্ত্রী তামিমার বি/রু/দ্ধে আগামীকাল সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) পারিবারিক আদালতে মা/ম/লা দায়ের করা হবে বলে জানিয়েছেন রাকিব।

এ জটিলতার বিষয়ে আইন কি বলছে?

ক্রিকেটার নাসির, বিমানবালা তামিমা তাম্মী এবং ব্যবসায়ী রাকিব হাসান ইস্যুতে কথা বলে হাইকোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট ইশরাত হাসানের সঙ্গে। তিনি বলেন, দ/ণ্ড/বি/ধি/র ৪৯৩ থেকে ৪৯৮ ধারা পর্যন্ত বিয়ে সংক্রান্ত অপরাধসমূহের সংজ্ঞা ও দণ্ড সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। উক্ত আইনের ৪৯৪ ধারা অনুসারে, স্বামী বা স্ত্রী বর্তমান থাকা অবস্থায় পুনরায় বিয়ে করা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। উক্ত ধারা মোতাবেক, স্বামী বা স্ত্রী বর্তমান থাকাবস্থায় পুনরায় বিয়ে করলে, তা সম্পূর্ণ বাতিল বলে গণ্য হবে। এবং এই অপরাধ প্রমাণিত হলে, প্রতারণাকারী স্বামী বা স্ত্রীর ৭ বছর পর্যন্ত কা/রা/দ/ণ্ড এবং অ/র্থ/দ/ণ্ডেও দ/ণ্ডি/ত হতে হবে।

তবে, এর ব্যতিক্রমও রয়েছে। যদি স্বামী বা স্ত্রী ৭ বছর পর্যন্ত নিরুদ্দেশ থাকেন এবং জীবিত আছে মর্মে কোন তথ্য না পাওয়া যায় এমন পরিস্থিতিতে পুনরায় বিয়ে করলে তা অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে না। এছাড়া, কোন স্বামী বর্তমান স্ত্রী বা স্ত্রীগণের অনুমতি নিয়ে বিশেষ কোন কারণ দেখিয়ে বিশেষ কোন পরিস্থিতিতে সালিশি পরিষদের নিকট আবেদন করলে, সালিশই পরিষদ তা যাচাই সাপেক্ষে পরবর্তী বিয়ের অনুমতি দিতে পারে। সেক্ষেত্রে পুনরায় বিয়ে অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে না। আগের বিয়ের কথা গোপন রেখে প্রতারণার মাধ্যমে যদি পুনরায় বিয়ে করে, তবে যাকে প্রতারণা করে বিয়ে করা হলো, তিনি অভিযোগ করলে তা ৪৯৫ ধারা মোতাবেক শা/স্তি/যো/গ্য অ/প/রা/ধ। এই ধারায় অপরাধ প্রমাণিত হলে ১০ বছর পর্যন্ত কা/রা/দ/ণ্ড এবং অর্থ/দ/ণ্ডে দ/ণ্ডি/ত হবে। আবার কেউ জেনে শুনে, অন্যের স্ত্রীকে বিয়ে করলে উক্ত বিয়ে দ/ণ্ড/বিধির ৪৯৪ ধারা মোতাবেক সম্পূর্ণ বাতিল হবে। এক্ষেত্রে, তা দ/ণ্ড/বিধির ৪৯৭ ধারা মোতাবেক ব্য/ভি/চা/র হিসেবে শা/স্তি/যো/গ্য অ/প/রা/ধ। অ/প/রা/ধ প্রমাণ হলে ৫ বছর পর্যন্ত কা/রা/দ/ণ্ড এবং অ/র্থ/দ/ণ্ড হতে পারে।

২০ ফেব্রুয়ারি তামিমা তাম্মী এবং নাসির হোসেনের বিবাহোত্তর সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ঐ অনুষ্ঠানটির ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। এবং তামিমা তাম্মীর পূর্বের স্বামী রাকিব আইনের দ্বারস্থ হয়েছে। তালাক না দিয়ে নতুন বিয়ে করায় তামিমার বিরুদ্ধে থানায় সাধারণ ডায়েরি (জি/ডি) করেছেন রাকিব।