গোটা পৃথিবী জুড়ে অসংখ্য দেশ রয়েছে। এবং নানা প্রয়োজনে প্রতিদিনই অসংখ্য মানুষ এক দেশ থেকে অন্য দেশে যাতায়াত করে থাকে। অবশ্যে এক্ষেত্রে একজন নাগরিকের পাসপোর্ট ভিসার প্রয়োজন হয়ে থাকে। অবশ্যে বিভিন্ন জরিপের মধ্যে দিয়ে প্রতিবছর শক্তিশালী দেশ গুলোর পাসপোর্টের তালিকা প্রকাশিত হয়ে থাকে।
ছয় ধাপ পিছিয়ে বাংলাদেশের পাসপোর্টের মান তালিকার ১০৬তম অবস্থানে নেমেছে বলে জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংস্থা দ্য হেনলি অ্যান্ড পার্টনার্স। মঙ্গলবার (৬ জুলাই) প্রকাশিত ওই তালিকায় বিশ্বের শক্তিশালী পাসপোর্ট সূচকে সবচেয়ে দুর্বল পাসপোর্টধারী দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ১১তম বলে জানা যায়। সূচকের ১১তম অবস্থানে বাংলাদেশের সাথে যৌথভাবে লেবানন ও সুদান রয়েছে। এক যুগ ধরে সূচক প্রকাশ করে আসা হেনলি অ্যান্ড পার্টনার্স প্রতি বছর চার বার এই সূচক প্রকাশ করে আসছে। জানুয়ারির সূচকে ১০১তম স্থানে ছিল বাংলাদেশ। এপ্রিলে ১০০তম অবস্থানে উঠলেও জুলাইয়ে ছয় ধাপ পিছিয়ে ১০৬তম স্থানে নেমেছে।

বাংলাদেশি পাসপোর্ট ব্যবহার করে বিশ্বের ২২৭ দেশের মধ্যে আগাম ভিসা ছাড়া ৪১টি দেশে যাওয়া যায়। এর মধ্যে আফ্রিকার ১৬টি, ক্যারিবীয় অঞ্চলের ১১টি, অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড ছাড়া ওশেনিয়ার ৭টি, এশিয়ার ৬টি এবং দক্ষিণ আমেরিকার একটি দেশ রয়েছে।
তবে আগাম ভিসা ছাড়া ইউরোপের কোনো দেশে যাওয়া যায় না।
বিশ্বের ১৯৯টি দেশকে নিয়ে করা এই তালিকায় টানা তৃতীয়বারের মতো প্রথম স্থানে আছে জাপান। জাপানের পাসপোর্ট ব্যবহার করে আগাম ভিসা ছাড়া বিশ্বের ১৯৩টি দেশে যাওয়া যায়। এছাড়া তালিকার দ্বিতীয় স্থানে থাকা সিঙ্গাপুরের পাসপোর্ট ব্যবহার করে আগাম ভিসা ছাড়াই যাওয়া যাবে ১৯২টি দেশে। অন্যদিকে তালিকার তৃতীয় স্থানে থাকা দক্ষিণ কোরিয়া ও জার্মানির পাসপোর্ট ব্যবহার করে আগাম ভিসা ছাড়াই যাওয়া যাবে বিশ্বের ১৯১টি দেশে।

বর্তমান সময়ে বিশ্বের ২২৭ দেশের মধ্যে আগাম ভিসা ছাড়া ৪১টি দেশে যাওয়া যায় বাংলাদেশি পাসপোর্ট ব্যবহার করে। এদিকে বিশ্বের শক্তিশালী পাসপোর্ট সূচকে সবচেয়ে দুর্বল পাসপোর্টধারী দেশগুলোর মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশে। এবং দুর্বল পাসপোর্টধারী দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ১১তম।

Sites