করোনাভাইরাসের প্রকোপে আতঙ্কিত বিশ্ববাসী। বিশ্বের ১৮৬টি দেশ এই ভাইরাসের শিকার। বিশ্বের অসংখ্য মানুষ প্রান হারিয়েছে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে। বিশ্বের অনেক দেশ এই ভাইরাস প্রতিরোধের জন্য নানা ভাবে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহন করেছে। এবং বিশ্বের অনেক দেশ অন্যান্য অনেক দেশের সাথে সাময়িক ভাবে যোগাযোগ বন্ধ করেছে। এমনকি প্রতিষেধক আবিষ্কারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে অনেক দেশ।
চলমান করোনা পরিস্থিতিতে নিম্ন আদালতের কার্যক্রম কমিয়ে আনা হয়েছে। জামিন, অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা ও জরুরি মামলা ছাড়া যৌক্তিক সময়ের জন্য নিম্ন আদালতের কার্যক্রম মুলতবির নির্দেশ দিয়েছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। করোনাভাইরাস মহামারি ঠেকাতে নিম্ন আদালতের কার্যক্রম বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে প্রধান বিচারপতি ও অ্যাটর্নি জেনারেলের বৈঠকের পর এ সিদ্ধান্ত জানানো হয়েছে। রবিবার (২২ মার্চ) সকালে বৈঠকে বসেন তারা।

এর আগে, বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ) করোনাভাইরাস থেকে রক্ষায় কারাবন্দি আসামিদের জামিন শুনানির দিন আদালতে হাজির হতে হবে না বলে নির্দেশনা দেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। দেশের সব নিম্ন আদালতের প্রতি এ নির্দেশনা দেন। নির্দেশনায় বলা হয়, কোনো আসামিকে জামিন শুনানির দিন কারাগার থেকে প্রিজনভ্যান বা অন্যকোনোভাবে আদালতে হাজির হতে হবে না।

উল্লেখ্য, ’কোভিড১৯’ ভাইরাসে বিশ্বের অর্থনৈতিক কর্মকান্ড ক্ষতির দিকে নিমজ্জিত হচ্ছে। এবং বানিজ্যিক খাতেও ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। বাংলাদেশেও এই ভাইরাসের প্রকোপ দেখা দিয়েছে। এখন পর্যন্ট বাংলাদেশে ২৭ জন আক্রান্ত হয়েছে। বাংলাদেশ সরকার এই ভাইরাস মোকাবিলার জন্য নানা ধরনের সচেতনমূলক ব্যবস্থা গ্রহন করেছে।