স্বাধীন ও গনতান্ত্রিক একটি দেশ বাংলাদেশ। এই দেশের পার্শ্ববর্তী একটি দেশ ভারত। এই দুই দেশের মধ্যে সুসম্পর্ক রয়েছে। একে অপরে নানা ভাবে সাহায্য-সহযোগিতা করে থাকে এই দুই দেশ। প্রতিদিন এই দুই দেশের অসংখ্য মানুষ নিজ প্রয়োজনে যাতায়াত করে থাকে। তবে সাম্প্রতিক সময়ে এই দুই দেশ করোনা ভাইরাসকে ঘিরে যাতায়াত ব্যবস্থা সাময়িক ভাবে বন্ধ ঘোষনা করেছে। এতে করে অনেকে বিপাকেও পড়েছে।
নিষেধ করার পরও প্রবাসীরা দেশে আসতে থাকায় ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন।
রবিবার (১৫ মার্চ) দুপুরে রাজধানীর ইস্কাটনে বিস অডিটোরিয়ামে আয়োজিত এক সেমিনার শেষে তিনি সাংবাদিকদের আরও বলেন, ভারত থেকে কোনো নাগরিককে আজ থেকে আর বাংলাদেশে আসতে দেয়া হবে না।

তিনি আরও বলেন, আমরা বলেছি, অবস্থার উন্নতি হলে দেশে আসার জন্য কিন্তু তারা সেটা শুনছেন না। সেজন্য বাধ্য হয়ে আমরা বিভিন্ন দেশের এয়ারলাইন্স বন্ধ করে দিয়েছি। যেসব দেশে করোনা ভাইরাস বেশি সেসব দেশ থেকে ফ্লাইট আসা বন্ধ করে দিয়েছি। তিনি আরও বলেন, আজ রাত ১২টা ১ মিনিট থেকে এটা কার্যকর হবে। বাংলাদেশি নাগরিকদের ভারত যেতে দিচ্ছে না, আজ থেকে ভারতের কেউও বাংলাদেশে আসতে পারবেন না। কয়েকজন মানুষের জন্য আমাদের ১৬ কোটি মানুষ অসুস্থ হোক সেটা আমরা চাই না।

উল্লেখ্য, করোনাভাইরাসকে ঘিরে বিশ্ব জুড়ে আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। সমগ্র বিশ্বের মানুষ এই ভাইরাসে ভীত। প্রতিদিন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছে অসংখ্য মানুষ এবং প্রান হারানো ব্যক্তির সংখ্যাও বাড়ছে। বাংলাদেশ সরকার এই ভাইরাস মোকাবিলার জন্য নানা ধরনের সর্তকতামূলক ব্যবস্থা গ্রহন করেছে।